উদয়নের তৃতীয় ফিউশনে আরো আনন্দধারা
সফি দেলোয়ার কাজল   
বৃহস্পতিবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৭

আমেরিকার গ্রীষ্মের প্রচন্ড তাপদাহের শেষে শরত (ফল)এর আগমনের বার্তা নিয়ে প্রকৃতিতে বইছে মৃদুমন্দ হিমেল হাওয়া। এমনি এক সন্ধ্যায় যুক্তরাষ্ট্রের ম্যারীল্যান্ড রাজ্যের  কলম্বিয়া শহরে উদয়ন ইঙ্কের  আয়োজনে  অনুষ্ঠিত হল  বর্নাঢ্য বিচিত্রা অনুষ্ঠান-ফিউশন ২০১৭।  এটা ফিউশন সিরিজের তৃতীয় অধ্যায়। ২০১৩ থেকে এক বছর অন্তর অন্তর  গ্রেটার ওয়াশিংটনের জনপ্রিয় শিল্পী দম্পতি শাহীন-রুবির নেতৃত্বে উচ্ছ্বাস আর উৎসবের রংগের ছটায় উদয়নের "ফিউশন" এর অপরূপ পরিবেশনায় অনুষ্ঠিত হচ্ছে "ফিউশন"-বাংলা বিচিত্রা অনুষ্ঠান। গত ১৬ই সেপ্টেম্বর শনিবার সন্ধ্যা  সাড়ে সাতটায় ম্যারীল্যান্ড রাজ্যের কলম্বিয়া শহরের 5460 Trumpeter Road,Columbia,MD 21044 স্থ "Jim Rouse Theater" মঞ্চে তৃতীয়বারের মত অনুষ্ঠিত হয় দেশের গান, মিউজিক, ড্যান্স, শিশু ড্রামা, ফ্যাশন শো দিয়ে সাজানো হয়েছে অনুষ্ঠান মালা। ।
 
শামীম চৌধুরী এবং শতরূপা বড়ুয়া জূটির উজ্জ্বল উপস্থাপনায়  প্রধান অতিথি হিসাবে অনুষ্ঠানের  উদ্বোধন করেন  যুক্তরাষ্ট্রে বাংলাদেশ দূতাবাসের উপ প্রধান জনাব মাহবুব হাসান সালেহ।  সন্মানিত অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন সিনেটর সুজান সি লী, বিশেষ অতিথি ম্যারিল্যান্ডের হাওয়ার্ড কাউন্টির ভাইস চেয়ার কেলভিন বি বল।

বাংলা সংষ্কৃতিকে ধারন করে প্রবাসের নতুন প্রজন্মকে মুলধারার আধুনিকতার সংমিশ্রনে  ২০১৩ এবং ২০১৫ এর পথ ধরেই ফিউশন-২০১৭ ভিন্ন মননে এবং আংগিকে পরিবেশিত হয়।

 ফিউশন-২০১৭  এর প্রথম পর্বটি  এরপর ছিল  দেশের গান নিয়ে গীতি আলেখ্য-""প্রবাসী প্রজন্ম এবং প্রেম স্বদেশিক""। রেজাউল করিম শাহীনের পরিকল্পনা এবং পরিচালনায়
""প্রবাসী প্রজন্ম এবং প্রেম স্বদেশিক" শুরুতেই ছিল প্রবাসের কবি এবং ভয়েস অব আমেরিকার কথা সাংবাদিক আনিস আহমেদের কবিতা থেকে অদিতি সাদিয়া রহমান এবং খায়রুজ্জামান লিটনের অনবদ্য আবৃত্তি। খায়রুজ্জামান লিটনের ধারা বর্ননায় দেশের মায়ার আলিংগনে এই পর্বটি সকলকে মুগ্ধ করে।

এরপর পরিবেশিত হয় ছোটদের নাটক -"ঠকবাজ হরিপদ"। নতুন প্রজন্মের শিশু-কিশোরদের পরিবেশনায় এই বাংলা নাটকটি রচনা করেছেন সফিকুল ইসলাম এবং পরিচালনা করেন শামীমা খন্দকার সীমু, রূপ সজ্জায় শারমিন শাহেদ ।  

এরপর   দর্শক-শ্রোতাদের আনন্দ আর উচ্ছ্বাসে পরিবেশিত হয় " ফিউশন মেডলি লঞ্জ"। ইভানা করিমের পরিকল্পনায় ফারহিন চৌধুরী এবং রায়েন হাফিজের পরিচালনায়  বাংলা আর ইংরেজী গানের মিশ্রনে এই পর্বটি ছিল প্রবাসে বাংলা সংষ্কৃতির নতুন মাত্রার ফিউশন।

ফিউশন মিউজিক লঞ্জে শোমা বোসের কবিতা আর রুমা ভৌমিকের গানের সাথে প্রিয়াংকা বোসের নাচের ব্যাতিক্রমী প্রয়াসটি ছিল আনন্দদায়ক।

 তাহসান এবং বালামের গান নিয়ে তরুন তারুন্যের দুই ভাই আহসান সাদাফ এবং আহসান ফাহমিদ সুমিতের দ্বৈত সংগীত অনুষ্ঠানে প্রানের সঞ্চার করে।
আরো সংগীত পরিবেশন করে বিপ্লব দত্ত।

এরপর মঞ্চ আলোকিত করে পরিবেশিত হয় নৃত্য গুচ্ছ "কালার অব ড্যান্স"। ক্লাসিক্যাল, কন্টেম্পটরেরী, বাংলা, হিন্দি বলিউড এবং পাঞ্জাবী ভাংরার সমন্বয়ে এই পর্বে
অংশ গ্রহন করে ঊষা সন্তোষ, ঈশা সন্তোষ, ইভানা করিম, এস্না রায়, আলিশা গোমেজ এবং গিনা গোমেজ, সাথে ইউনিভার্সি অব মেরিল্যান্ডের ভাংরা গ্রুপ।

শেষ পর্বে ছিল ফিউশন ফ্যাশন শো। নিউইয়র্কের ফ্যাশন ইন্ডাস্ট্রির শামা সালেহের কোরিওগ্রাফীতে  দারুন উপভোগ্য মনোরম এই উপস্থাপনা।

ছন্দে আনন্দে এই ফ্যাশন শোর বাহারে দর্শক শ্রোতাদের মন রাংগানোর মধ্য দিয়ে  আরো বর্নাঢ্য ফিউশন-২০১৯ এর প্রত্যাশাতে  শেষ হয় ফিউশন-২০১৭। অনুষ্ঠানের শব্দ নিয়ন্ত্রনে ছিল জামিল খান,  ইভেন্ট পরিচালনায় ছিলেন রেজাউল করিম শাহীন এবং অনুষ্ঠান ব্যবস্থাপনায় রুবিনা করিম।
বাংগালী অনুষ্ঠান মানেই সাড়ে তিন ঘন্টার দীর্ঘ একটি অনুষ্ঠান। ফলে শেষের দিকে প্রায় দর্শক শূন্য অডিটোরিয়ামে অনুষ্ঠানের সমাপ্তি টানা। উদয়নের এই অনুষ্ঠানটিও দীর্ঘ হলেও  অনুষ্ঠানের বৈচিত্রে শেষ অবধি মানুষ উপভোগ করেছেন। সেই জন্য  ধন্যবাদ পেতে পারে উদয়ন ইভেন্ট ব্যবস্থাপনা পর্ষদ।
সর্বশেষ আপডেট ( শুক্রবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৭ )