চুয়াফির ত্রৈমাত্রিক উৎসব পালিত:
সরোজ বড়ুয়া, ভার্জিনিয়া   
বৃহস্পতিবার, ১৩ এপ্রিল ২০১৭

 ধন ধান্য পুষ্প ভরা দেশ থেকে হাজার মাইল দূরের মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের জনবহুল নগরী ওয়াশিংটন ডিসিতে বরফের ক্লান্তি শেষে চেরী ফুলের গাছগুলো সবেমাত্র হেঁসেছে। এরই মাঝে চট্রগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় এলামনাই ফোরামের উদ্যোগে অনুষ্ঠিত হয়  নির্বাচনোত্তর পরিচালনা পরিষদের অভিষেক, সদ্য অতিক্রান্ত স্বাধীনতা দিবস আর আসন্ন নববর্ষ উদযাপন। গত পহেলা এপ্রিল, শনিবার, ২০১৭, সন্ধ্যায় ভার্জিনিয়ার ম্যাসন ডিসট্রিক গভঃ সেন্টারে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় এলামনাই ফোরামের (চুয়াফি) ত্রয়ী উৎসব পালিত হয়।
 দীপক  বড়ুয়ার উপস্থাপনায় শুরু হয় উৎসবের প্রথম পর্ব। শুরুতে চুয়াফির সদস্যদের সন্তানেরা বাংলাদেশ ও আমেরিকার জাতীয় সঙ্গীত পরিবেশন করে।বাংলাদেশের ৪৬ তম স্বাধীনতা দিবসের স্বরণে, মহান স্বাধীনতা অর্জনের লক্ষে যারা প্রাণ দিয়েছেন, যে সমস্ত মুক্তি যোদ্ধারা এখনো পঙ্গুত্ব জীবন যাপন করছেন, যে সমস্ত মা বোনদের ইজ্জত লুন্ঠিত হয়েছে এবং মহান স্বাধীনতাকে সমুন্নত রাখতে যারা আজও প্রাণ দিয়ে যাচ্ছেন তাঁদের প্রতি সম্মান প্রদর্শন স্বরূপ  ১ মিনিট নীরবতা পালনের মাধ্যমে প্রার্থনা করা হয়।

অতপর গ্রেটার  ওয়াশিংটনে বসবাসরত চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের গ্রাজুয়েটদের সংগঠন, চুয়াফির (CUAFI) দ্বিতীয় বারের মত নবনির্বাচিত পরিচালনা পরিষদের সদস্যদের শপথ গ্রহণ সম্পন্ন হয়। নির্বাচন কমিশনার ও চুয়াফির সদস্য শামীম চৌধুরীর পরিচালনায় ১৫ সদস্য  বিশিষ্ট নবনির্বাচিত কার্যকরী কমিটির সদস্যদের শপথ বাক্য পাঠ করান প্রধান নির্বাচন কমিশনার, চট্ট্রগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাক্তন অধ্যাপক ও ভয়েজ অব অ্যামেরিকার সাংবাদিক ও কবি, আনিস  আহমেদ। নব নির্বাচিত সদস্যগনকে  শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জ্ঞাপন করেন আরেক নির্বাচন কমিশনার, আবিয়ার প্রাক্তন সভাপতি গোলাম মাওলা।


নব নির্বাচিত কার্যকরী কমিটির সদস্যগন হলেন সভাপতি:  নুরুল  আলম, সহ সভাপতি যথাক্রমে: নাজমা মাওলা, বিভা চৌধুরী ও কামরুল  ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক: সরোজ বড়ুয়া, সহ সাধারণ  সম্পাদক: কানিজ জাফরিন, কোষাধ্যক্ষ: মিজানুর রহমান খান, সংস্কৃতি ও ক্রীড়া সম্পাদক: সোহানা সিদ্দিক, সহ সম্পাদক: নাসরিনা আহমেদ, প্রেস ও পাবলিকেশন সম্পাদক: আহসান আলম ও এক্সেকিউটিভ সদস্য যথাক্রমে: সন্তোষ বড়ুয়া, মোহাম্মদ শফিউল্লাহ, সুজিত বড়ুয়া, শামছুদ্দিন মাহমুদ ও জাভেদ চৌধুরী।এছাড়া ছয় সদস্যের একটি পরামর্শক কমিটি গঠন করা হয়। সদস্যগন হলেন, আনিস আহমেদ, প্রফেসর আসিফ উদ দৌলা, শহীদ মাহমুদ জঙ্গি, শামীম চৌধুরী, সাদেক খান ও মহসিনা হাছান।

আহসান আলম ও নাসরিনা আহমদের উপস্থাপনায় শুরু হয় উৎসবের দ্বিতীয় পর্ব। আমাদের মহান স্বাধীনতা দিবস ও বাঙ্গালীর প্রানের উৎসব বর্ষবরণ উপলক্ষে পরিবেশিত হয় এক মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক সন্ধ্যা। এতে একক ও দলীয় নৃত্যে অংশগ্রহণ করেন সপ্তর্ষি, অতসী, সুসান, সাবরিনা, ইশাল, রুম্পা, হাসি, এবং একক সংগীতে অংশগ্রহণ করেন শ্রেয়সী, কুলসুম, বুলবুল ও সুমি। কবিতা আবৃতি করেন দিয়া ও মিজান, সবশেষে সোহান সিদ্দিকের গ্রন্থনা ও পরিচালনায় শপথ গ্রহণ, স্বাধীনতা দিবস ও বর্ষবরণ নিয়ে একটি গীতি আলেখ্য পরিবেশিত হয়। এতে অংশগ্রহণ করেন, নাজমা মওলা, সোহানা সিদ্দিক, কানিজ জাফরিন, কুলসুম আলম, বুলবুল আক্তার, সুমি চৌধুরী, লিপিকা বড়ুয়া, নাসিমা আলম, লাকি বড়ুয়া, নাজরীনা আহমেদ, পারভীন কওসার রিয়া, নাসের চৌধুরী, আশীষ বড়ুয়া, আশিক জঙ্গি পিরু, দিব্য বড়ুয়া, মিজানুর রহমান খান ও সরোজ বড়ুয়া। সঙ্গীত পরিচালনায় ছিলেন, নাসের চৌধুরী, তবলায় ছিলেন আশিষ বড়ুয়া, রাশেদ রোমান ও ভায়োলিনে দিব্য। শেফালী ঘোষ ও শ্যামসুন্দর বৈষ্ণব এর ভূমিকায় চট্টগ্রামে আঞ্চলিক গান ও অভিনয়ে ছিলেন লাকি বড়ুয়া  ও সন্তোষ বড়ুয়া।

শব্দ গ্রহণের সার্বিক তত্বাবধানে ছিলেন শামীম চৌধুরী ও দিব্য। পুরু অনুষ্ঠানে ভিডিও চিত্র ধারণ করেন মি:  গোলাম মওলা ও এশিয়া টিভি'র রিপোর্টার মি:  আরিফুল ইসলাম এবং স্থির চিত্র ধারণ করেন (ফোটোগ্রাফিতে) মি:  রাজীব বড়ুয়া। বিশেষ আকর্ষণীয় মঞ্চ সজ্জায় ছিলেন আহসান আলম।  এখানে আরেকটা বিষয় উল্লেখ্য যে অনুষ্ঠান শুরুর পূর্বে পরিৱেশিত হয় ফোরামের সহ সভাপতি নাজমা মাওলার নিজ হাতে তৈরি ট্রে ভর্তি লোভনীয় গরম গরম সিংগারা এবং নৈশ ভোজের সমাপ্তিতেও ছিল  তাঁরই হাতে তৈরি অমৃত সম গুড়ের পায়েস,  যা ভোজন রসিকদের মাঝে যোগ করে তৃপ্তির আরেকটি মাত্রা।

 উৎসব কমিটির আহবায়ক শামছুদ্দিন মাহমুদ এবং অন্যতম সদস্য জাভেদ চৌধুরী, মোহাম্মদ শফিউল্লাহ, কামরুল ইসলাম, প্রনব বড়ুয়া, সুজিত বড়ুয়া, কানিজ জাফরিন, বিভা চৌধুরী, আয়ান রশিদ, রূপান্তর বড়ুয়া, মাহ্শাদুল আলম রূপম ও দীপক বড়ুয়ার, সর্বাত্মক সহযোগিতায় ত্রয়ী উৎসবে চমৎকার পরিবেশনায় ও আতিথিয়তায়  শেষ হয় উৎসবের শেষ পর্ব সান্ধ্যভোজের মাধ্যমে।
সর্বশেষ আপডেট ( বৃহস্পতিবার, ১৩ এপ্রিল ২০১৭ )