বৈশাখী রিসিপি : চিংড়ি কচুশাক ভর্তা
মেরিনা রহমান, মেরিল্যান্ড   
সোমবার, ১০ এপ্রিল ২০১৭

ছবিঃ পায়ে প্লাস্টার নিয়েও গত ২৪শে মার্চ নিউজ-বাংলার দেশের গানের অনুষ্ঠান-"মাটিরে আমার"তে অংশ নেন মেরিনা রহমান।
গ্রেটার ওয়াশিংটনের গুণী শিল্পী মেরিনা রহমান। পেশায় একজন রিয়েল স্টেট ব্যবসায়ী। পেশাগত কাজের সময় পা ফস্কে পড়ে গিয়ে এখন ঘর বন্দী। তবে একে বারে বসে নেই ঘরে। অপ্রত্যাশিত এই অবসরে আসছে বাংলা নব বর্ষকে সামনে রেখে নিউজ-বাংলার ভোজন রসিক পাঠকদের জন্য "চিংড়ি কচুশাক ভর্তা"র লোভনীয় রিসিপি।

বৈশাখী  রিসিপি : চিংড়ি কচুশাক ভর্তা কি কি লাগবে :  কচুপাতা মাঝারি ৭-৮ টি, ছোটো চিংড়িমাছ আধা কাপ, রশুন কোয়া ৪-৫ টি, কাঁচা মরিচ ৩-৪ টি (বা আপনার পছন্দমতো বেশি বা কম), পেঁয়াজ কুচি ১/৪ কূপ, সরিষার তেল  ১ টেবিল চামচ, লবন স্বাদমতো।

কি ভাবে বানাবেন:

প্রথমে কচুপাতা গুলো ধুয়ে নিন। চিংড়িমাছ গুলো খোসা ছাড়িয়ে ধুয়ে পানি ঝরিয়ে রাখুন।  এবার কচুপাতা গুলোএকটার উপর একটা সাজিয়ে রাখুন ( সাধারণত যেভাবে পাতা গুলো গাছে থাকে ঠিক সেভাবে, অর্থাৎ চিৎ করে) । সাজানো কচুপাতার উপরে এবার চিংড়িমাছ, কাঁচা মরিচ ও রশুন কোয়া রেখে কচুপাতাগুলো খুব ভালোভাবে মুড়ে নিন। মোড়ানো দিকটাকে নিচে রেখে কচুপাতার এই পুটুলিটা এবার একটি ফ্রাই প্যানে দিন যেন মোড়কটা খুলে না যায়। এবার ফ্রাই প্যানটি অল্প আঁচে চুলোয় বসিয়ে ঢেকে দিন।  এটা উল্টাবার দরকার নেই.মাঝে মাঝে দেখবেন যদি খুব শুকনো মনে হয়ে তাহলে টেবিল চামচ দিয়ে চারপাশে একটু পানি দিয়ে দিন।  এভাবে প্রায় ৩০ মিনিট বা একটু বেশি সময় রেখে একবার কাঁটা চামচ বা ছুরির চোখা দিক দিয়ে খুঁচিয়ে দেখুন পাতা সিদ্ধ হয়েছে কি না।  সিদ্ধ হলে চুলো বন্ধ করুন। এরপর কচুপাতা ঠান্ডা হলে একে শীল-পাটায় বেটে নিন বা ফুড প্রসেসরে পেস্ট করে নিন।  
পেঁয়াজকুচি গুলো এবার স্বাদমতো লবন দিয়ে খুব ভালোভালে মাখুন। পেঁয়াজ থেকে পানি বের হয়ে পেঁয়াজকুচি নরম হয়ে  এলে এতে সর্ষের তেল মেশান। এবার পেঁয়াজের এই মিশ্রণটি কচুপাতা ও চিংড়ির পেস্ট এর সাথে মেখে ফেলুন।  ব্যাস হয়ে গেলো মজাদার চিংড়ি কচুশাকের ভর্তা।  এই বৈশাখী খাবারের আয়োজনে আপনার ভর্তার তালিকায় এটি হতে পারে দারুন একটি সংযোজন।

* ঝাল, লবন ও তেল এ তিনটি উপকরণ আপনার নিজের পছন্দমতো হতেই  পারে।
* একই ভাবে চিংড়ি ছাড়া শুধু কচুপাতারই  ভর্তা করতে পারেন।  
সর্বশেষ আপডেট ( সোমবার, ১০ এপ্রিল ২০১৭ )