ওয়াশিংটনে বাংলাদেশ দূতাবাসে স্বাধীনতা উদযাপন
নিউজ-বাংলা ডেস্ক   
শুক্রবার, ৩১ মার্চ ২০১৭

যথাযথ মর্যাদা ও ভাবগাম্ভীর্যের মধ্য দিয়ে ৪৭তম মহান স্বাধীনতা এবং জাতীয় দিবস উদযাপন করেছে ওয়াশিংটনে বাংলাদেশ দূতাবাসে।  মাননীয় রাষ্ট্রদূত জিয়াউদ্দিন আহমেদ  ২৬ মার্চ সকালে  দূতাবাস প্রাঙ্গনে জাতীয় পতাকা উত্তোলনের মধ্য দিয়ে দিবসের কর্মসূচী শুরু করেন। এ সময়, দূতাবাসের কর্মকর্তা-কর্মচারীগণ উপস্থিত ছিলেন । এই দিবস উপলক্ষ্যে গত ২৮শে মার্চ মংগলবার সন্ধ্যায় এক  সংবর্ধনা  অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

অনুষ্ঠানে  মহামান্য রাষ্ট্রপতি, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী,  মাননীয় পররাষ্ট্র মন্ত্রী এবং মাননীয় পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রীর বাণী পাঠ করা হয়। এরপর, দিবসটির তাৎপর্য তুলে ধরে  দূতাবাসের বংগবন্ধু মিলনায়তনে  এক বিশেষ আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসাবে অংশ গ্রহন করে ট্রাম্প প্রসাশনের পক্ষে যুক্তরাষ্ট্রের রাজনীতি বিষয়ক আন্ডার সেক্রেটারি অব স্টেট অ্যাম্বাসেডর থমাস এ শ্যানন  শ্যানন তার বক্তব্যে  সহিষ্ণুতা, বহুত্ববাদ ও মডারেট দেশ হিসেবে বাংলাদেশকে বিশ্বের একটি মডেল বলে উল্লেখ করেন।   তিনি বলেন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প প্রশাসনের কাছে বাংলাদেশ গুরুত্বপূর্ণ। ২০১৫ সালে ঢাকা সফর অভিজ্ঞতা উল্লেখ করে তিনি বলেন   তুলনামূলক একটি নবীন দেশ হিসেবে বাংলাদেশ সাড়ে চার দশকে যা অর্জন করেছে অন্যান্য দেশগুলোর সেখানে লেগেছে শত বছর।   তিনি আরো বলেন  ‘বাংলাদেশ আমাদের অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ আঞ্চলিক অংশীদার।

সংবর্ধনা  অনুষ্ঠানে অন্যান্যদের মধ্যে আরো উপস্থিত ছিলেন দক্ষিণ ও মধ্য এশিয়া বিষয়ক যুক্তরাষ্ট্রের ভারপ্রাপ্ত অ্যাসিস্ট্যান্ট সেক্রেটারি অব স্টেট অ্যাম্বাসেডর উইলিয়াম ই টোড, বাংলাদেশ যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক কয়েকজন রাষ্ট্রদূত স্টেট, জাস্টিস, কমার্স, হোমল্যান্ড বিভাগের গুরুত্বপূর্ণ কর্মকর্তা এবং যুক্তরাষ্ট্রের সরকারের অন্যান্য বিভাগের কর্মকর্তারা ।

১৯৭১ সালে স্বাধীনতা যুদ্ধের কথা তুলে ধরে আন্ডার সেক্রেটারি উইলিয়াম ই টোড বলেন, বাংলাদেশের জনগণ স্বাধীনতার জন্য লড়াই করেছে, জীবন দিয়েছে, যা তাদের ভবিষ্যৎ প্রজন্মকে স্বাধীনতা, গণতন্ত্র ও সহিষ্ণুতার জন্য অব্যাহত লড়াইয়ে অনুপ্রাণিত করছে। সম্প্রতি সিলেটে সন্ত্রাসী হামলায় ৬জন নিহত হওয়ায় শোক প্রকাশ করে তিনি বলেন, এই মর্মান্তিক ঘটনা সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে অব্যাহত অংশীদারিত্বের প্রয়োজনীয়তা আরো জোরদার করেছে।

এর আগে যুক্তরাষ্ট্রে বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত মোহাম্মদ জিয়াউদ্দিন বলেন, যুক্তরাষ্ট্রের নতুন সরকারের সমর্থন দিয়ে বিদ্যমান সম্পর্ক আরো জোরদারে ঢাকা আগ্রহী। যুক্তরাষ্ট্রের নির্বাচনে নতুন প্রেসিডেন্ট হিসেবে ডোনাল্ড ট্রাম্প নির্বাচিত হওয়ার পরপরই তাঁকে অভিনন্দন জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার চিঠির কথা তুলে ধরে জিয়াউদ্দিন বলেন, আমাদের দ্বিপক্ষীয় এবং বহুপক্ষীয় স্বার্থে এবং নিরাপদ বিশ্ব তৈরিতে প্রধানমন্ত্রী প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের সঙ্গে ঘনিষ্ঠভাবে কাজ করার আগ্রহ ব্যক্ত করেছেন।  বক্তব্যের তিনি  প্রারম্ভে হাজার বছরের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙ্গালী জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের অবদানকে স্মরণ করেন। তিনি স্মরণ করেন, দেশ ও বিদেশে অবস্থানরত প্রত্যেক নর-নারী যারা বাংলাদেশের জন্যে ১৯৭১ সালে চরম আত্মত্যাগ স্বীকার করেছিলেন।

সর্বশেষ আপডেট ( শুক্রবার, ৩১ মার্চ ২০১৭ )