ওয়াশিংটন ডিসিতে বাগডিসির স্বাধীনতা দিবস উদযাপন
রফিকুল ইসলাম আকাশ, ভার্জিনিয়া থেকে-   
শুক্রবার, ৩১ মার্চ ২০১৭

 যুক্তরাষ্ট্র থেকে- গত ২৫শে মার্চ, শনিবার যুক্তরাষ্ট্রের আলেকজান্দ্রিয়া, ভার্জিনিয়ায় উদযাপিত হয়ে গেল বাংলাদেশের “গনহত্যা দিবস” ও মহান “স্বাধীনতা দিবস”। বাংলাদেশ এসোসিয়েশন অব গ্রেটার ওয়াশিংটন ডিসি’র (বাগডিসি) আয়োজনে ৮৪২৮ ফোর্টহান্ট রোড , আলেকজান্দ্রিয়া, ভার্জিনিয়া স্যান্ডবার্গ মিডল স্কুল মিলনায়তনে বিপুল সংখক প্রবাসী বাংলাদেশীদের স্বতঃস্ফুর্ত অংশগ্রহনে এই অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ভয়েস অব আমেরিকার বাংলা বিভাগের প্রধান মিসেস রোকেয়া হায়দার ।

 এরপর বিকেল ৫ ঘটিকায় বাগডিসির হোষ্ট কমিটি আমন্ত্রিত অতিথিদের শুভেচ্ছা জানিয়ে রাতের খাবার পরিবেশন করেন । এরপর মঞ্চে “হৃদয়ে বাংলাদেশ , চেতনায় মুক্তিযুদ্ধ” শ্লোগানে আয়োজিত অনুষ্ঠানের শুভারম্ভে আগত অতিথিদের স্বাগতম ও শুভেচ্ছা জানিয়ে অনুষ্ঠান শুরু করেন জনাব রেদোয়ান চৌধুরী ও মিসেস সম্পা বনিক। শুরু হয় মুল অনুষ্ঠান- অনুষ্ঠান সঞ্চালনায় ছিলেন ওয়াশিংটনের সবার পরিচিত সারা তানজীন ও জনাব শামীম চৌধুরী ।অনুষ্ঠানের শুরুতে প্রবাসে বেড়ে উঠা ছোট ছোট বাচ্চাদেরসহ কিশোর-কিশোরীরা বাংলাদেশ ও যুক্তরাষ্ট্রের জাতীয় সংগীত পরিবেশন করেন।

 বাগডিসি আয়োজিত অনুষ্ঠানের প্রথম এবং প্রধান অংশ ’৭১-এর ২৫শে মার্চের বাংলাদেশের ইতিহাসের সবচেয়ে মর্মান্তিক গনহত্যার ভয়াল কাল রাতের বেদনাক্ত ঘটনার স্মরণে উৎসর্গীকৃ্ত ছিল। অনুষ্ঠানের প্রথম পর্বে ২৫শে মার্চের কালরাতে যারা শহীদ হয়েছিলেন তাদের মহান আত্মত্যাগের স্মৃতির উদ্দেশ্যে শ্রদ্ধা জানিয়ে এক মিনিট নিরবতা পালন করে অনুষ্ঠান শুরু করা হয়।

 এরপর বাগডিসি কর্তৃক ওয়াশিংটন মেট্রো এলাকায় প্রবাসী পাঁচ জন মুক্তিযোদ্ধাকে “বাগডিসি মুক্তিযোদ্ধা সম্মাননা” প্রদান করা হয়। এবার যাদের সম্মাননা প্রদান করা হয় তারা হলেন- মিঃ সরকার কবিরুদ্দীন, মিঃ হারুনুর রশিদ, মিঃ অসীম রানা, মিঃ ডেভিড রোজারিও এবং মিঃ সুনীল শুক্লা। এরপর “গনহত্যা দিবস” ও “স্বাধীনতা দিবস”কে সামনে রেখে মঞ্চে দলীয় সঙ্গীত ও নৃত্য পরিবেশনা নিয়ে আসে বিসিসিডিআই বাংলা স্কুল , বর্ণমালা শিক্ষাঙ্গন এবং বাগডিসি’র ছেলেমেয়ারা। তাদের পরিবেশিত দেশাত্মবোধক গানের ছোঁয়ায় উদ্দীপ্ত হয়ে উঠে সবার মন, শহীদদের স্মৃতির স্মরণে গভীর শ্রদ্ধায় আনত হয় সবার হৃদয়।


অনুষ্ঠানের এপর্বে ওয়াশিংটন মেট্রো এলাকার সামাজিক উন্নয়নের প্রেক্ষাপটে বিশেষ ভুমিকা ও অবদান রাখার জন্য কয়েকজন ব্যক্তিত্ব এবং সংগঠনকে তাদের প্রাপ্য সম্মাননা দেয়ার উদ্দেশ্যে প্রদান করা হয় “বাগডিসি আজীবন সম্মাননা”। এবার যাদের এই সম্মাননায় ভূষিত করা হয়, তারা হলেন- জনাব আনিস খান ও জনাব হাবিব খান- তাদেরকে এই সম্মাননা প্রদান করা হয় ওয়াশিংটন মেট্রো এলাকার বৃহত্তর সামাজিক উন্নয়নে বিশেষ সহযোগিতা ও পৃষ্ঠপোষকতা করার জন্য। এছাড়া “বাগডিসি আজীবন সম্মাননা” প্রদান করা হয় ওয়াশিংটনের আদি সামাজিক সংগঠন, বিসিসিডিআই বাংলা স্কুলকে, প্রবাসে বেড়ে উঠা ছোট ছোট ছেলেমেয়েদের কাছে আমাদের দেশের ইতিহাস, ভাষা, সংস্কৃতি ও কৃষ্টিকে পরিচয় করিয়ে দেয়ার জন্য, তাদের অন্তরে প্রোথিত করা নিরন্তর প্রয়াসের জন্য। বিসিসিডিআই বাংলা স্কুলের পক্ষে এই সম্মাননা গ্রহন করেন বিসিসিডিআই বাংলা স্কুলের প্রেসিডেন্ট জনাব সঞ্জয় বড়ুয়া।


আয়োজিত অনুষ্ঠানের দ্বিতীয় পর্বে ২০১৬ সালে অনুষ্ঠিত ‘৩০তম ফোবানা সম্মেলন’কে সাফল্যমন্ডিত করা জন্য হোষ্ট কমিটি বাগডিসি’কে যারা বিশেষভাবে সহযোগিতা করেছেন এবং বিশেষ অবদান রেখেছেন, তাদের সম্মানিত করার জন্য “ফোবানা এপ্রেসিয়েশন এওয়ার্ড” প্রদান কর হয়। সম্মাননা প্রদান করেন বাগডিসি’র নব নির্বাচিত প্রেসিডেন্ট জনাব মোহাম্মদ আলমগীর, ডক্টর বদরুল হুদা খান, জনাব আনিস খান, জনাব হাবিব খান, মিসেস ইনারা ইসলাম ও জনাব জাকির হোসেন ।

আয়োজিত অনুষ্ঠানের আরেকটি বিশেষ অংশ ছিল বাগডিসি’র নব নির্বাচিত কমিটির শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠান। নব নির্বাচিত কার্যকরী পরিষদের নির্বাচন প্রক্রিয়ার উপর সংক্ষিপ্তভাবে আলোকপাত করেন বাগডিসি’র প্রধান সমন্বয়ক জনাব রেদোয়ান চৌধুরী এবং জনাব হাবিব খান নতুন কমিটির সদস্যদের শপথ বাক্য পাঠ করান। বাগডিসি’র নতুন কার্যকরী পরিষদের সদস্যবৃন্দ হলেন- মোহাম্মদ আলমগীর –প্রেসিডেন্ট, নুরুল আমিন নুরু- ভাইস প্রেসিডেন্ট, রোকসানা পারভীন- ভাইস প্রেসিডেন্ট, পারভীন পাটোয়ারী – ভাইস প্রেসিডেন্ট, এ্যান্থনী পিউস গমেজ- জেনারেল সেক্রেটারি, সাইফুল্লাহ খালেদ- জয়েন্ট সেক্রেটারি, নাইম রহমান- ট্রেজারার, রোমিও হক- জয়েন্ট ট্রেজারার, সম্পা বণিক- কালচারাল সেক্রেটারি, রবিউল আলম- জয়েন্ট কালচারাল সেক্রেটারি, রফিকুল ইসলাম আকাশ- প্রেস এন্ড পাবলিকেশন্স সেক্রেটারি।

এক্সিকিউটিভ মেম্বারঃ জনাব এটিএম আলম, হাজী সালাউদ্দিন করিম, জনাব আবু রুমী, জনাব আক্তার হোসেন, জনাব কামরুল ইসলাম, জনাব জাকির আলম, জনাব নাসির আহমেদ এবং জনাব বুরহান আহমেদ। তুন কার্যকরী পরিষদের পক্ষে সংক্ষিপ্ত বক্তব্য রাখেন মোহাম্মদ আলমগীর, নুরুল আমিন নুরু এবং এ্যান্থনী পিউস গমেজ।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত যেসব বিশেষ অতিথিবৃন্দ বাগডিসি’র আয়োজনকে স্বাগত জানিয়ে এর কার্যক্রমকে উৎসাহিত করেছেন, তারা হলেনঃ প্রধান অতিথি- মিসেস রোকেয়া হায়দার (ভয়েস অব আমেরিকা), এ্যন প্যাম- ইউ এস সিনেটর মার্ক ওয়ার্নার-এর আউটরীচ ডিরেক্টর, ডেপুটি চীফ অব মিসন, মায়ানমার দূতাবাস, প্রথম সেক্রেটারী- নেপাল দূতাবাস, ডাইভার্সিটি এন্ড ইনক্লুশন ডিরেক্টর, জর্জ ম্যাসন ইউনিভার্সিটি, রেসিডেন্ট- রাজধানী মন্দীর।

সর্বশেষ আপডেট ( শুক্রবার, ৩১ মার্চ ২০১৭ )