News-Bangla - নিউজ বাংলা - Bangla Newspaper from Washington DC - Bangla Newspaper

২০ সেপ্টেম্বর ২০১৭, বুধবার      
কানেকটিকাটে “বিজয় দিবস ২০১৩” প্রিন্ট কর
নিউজ-বাংলা ডেস্ক   
মঙ্গলবার, ২৪ ডিসেম্বর ২০১৩

  গত ২২শে ডিসেম্বর, রবিবার বাংলাদেশী আমেরিকান এসোসিয়েশন অব কানেকটিকাটের (বাক) উদ্যোগে অত্যন্ত জমজমাটভাবে উৎযাপিত হয়েছে বিজয় দিবস। কানেটিকাটের ওয়ালিংফোর্ডে, পারকার্স ফার্ম এলিমেন্টারী স্কূলে আয়োজিত রূচী সন্মত এই সাংস্কৄতিক অনুষ্ঠানটি উপভোগ করেছে কানেটিকাটবাসীরা।

এই বর্ণাঢ্য সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানেটিতে বিপুল সংখক দর্শকের আগমন ঘটে। ক্ষুদে শিল্পীদের নাচ-গান এবং স্থানীয় ও অতিথী-শিল্পীদের পরিবেশনায় অনুষ্ঠিত মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানটি অত্যন্ত প্রশংশিত হয়েছে। এই সাংস্কৃতিক সন্ধ্যায় অতিথী শিল্পী, চ্যানেল আই সেরা কন্ঠ ২০১০:দিপ্তী, বাউল শিল্পী: জিল্লুর রহমান, ও এন টিভি ষ্টার সার্চ সেরা পাঁচ:অপু রহমানের জমজমাট গান পরিবেশনা দর্শকদের মাতিয়ে তুলেছিলো। বিজয় দিবসের স্মরনে বিশিষ্ট সংগীত শিল্পী লিটন গ্রেগরী, কানন হাসান, রশিদা আখন্দ লাকী, ফরিদা খানের দেশাত্ববোধক সংগীত পরিবেশনা, এবং অন্যান্য স্থানীয় শিল্পীদের পরিবেশনা এই সাংস্কৄতিক অনুষ্ঠানটিকে এলাকাবাসীর কাছে উপভোগ্য করে তুলেছিলো। হরেক রকমের খাবারদাবার, শিশুদের ভীড়, আর বড়দের আড্ডায় জমজমাট বাকের এই বিজয় উৎসবে অনেক গন্যমান্য ব্যক্তিদের উপস্হিতি ছিলো লক্ষ্যনীয়। বাক” এর প্রাক্তন প্রতিষ্ঠাতা কর্মকর্তা ডঃ তাহির আখন্দ, ডঃ গোলাম গাজী, ডঃ সারওয়ার হাসান, ডঃ সাইদুর রহমান উপস্হিত ছিলেন। এছাড়াও উপস্হিত ছিলেন ডঃ গুলশান আরা, ডঃ নার্গিস গাজী (মলি), ডঃ মেহেদী, ডঃ লীয়া মেহেদী, “ফোর বীজ” এর কর্ণধর অমিত চৌধুরী, এবং অন্যান্য স্থানীয় গুনীজনদের অনেকেই। অনুষ্ঠানটিতে প্রধান অতিথী ছিলেন কুইনিপিয়াক ইউনিভার্সিটির ইনটারন্যাশনাল বিজনেস বিভাগের সভাপতি ডঃ নিয়ামত এলাহী। ডঃ এলাহী তাঁর বক্তব্যে বলেন “স্বাধীনতা যুদ্ধের অভিঙ্গতা আর মুক্তিযুদ্ধের চেতনাকে পাথেয় করে আমাদের ভবিষ্যৎ গড়তে হবে”। এই অনুষ্ঠানে দুজন মুক্তিযোদ্ধাকে লাল-সবুজ রঙের উত্তরীয় পরিয়ে সন্মান জানানো হয়। মুক্তিযোদ্ধারা হলেন জনাব আবদুস সালাম এবং জনাব মেহেরাজুল করিম (মানিক)। জাতিসংঘে নিয়োজিত বাংলাদেশ মিশনের স্হায়ী প্রতিনীধি ডঃ এ, কে, আবদুল মোমেন এঁর প্রেরিত শুভেচ্ছা বাণী পড়ে শোনান বিশেষ অতিথী জনাব কাজী শাহজাহান বেলাল। বাকের এই বিজয় দিবস অনুষ্ঠানটির সার্বিক পরিচালনায় ছিলেন সাংস্কৃতিক সম্পাদক হুমায়ন চৌধুরী ও বাকের ১৭-সদস্য বিশিষ্ঠ নবনিযুক্ত কার্যকরী পরিষদ। এই সাংস্কৄতিক অনুষ্ঠানে নবনিযুক্ত কার্যকরী পরিষদকে পরিচয় করিয়ে দেন বাকের সাধারন সম্পাদক জনাব মশিউর রহমান কামাল। এই নব-নির্বাচিত কার্যকরী পরিষদের কার্যকাল: জুলাই ২০১৩ থেকে জুন ২০১৫পর্যন্ত। বাকের বিগত এবং নবনিযুক্ত সভাপতি জনাব আশফাকুল তরফদার তাঁর সংক্ষিপ্ত বক্তব্যে বলেন নবনিযুক্ত পরিষদ গনতন্ত্রের পরিচ্ছন্ন চর্চায় অঙ্গীকারবদ্ধ। সাধারন সম্পাদক জনাব মশিউর রহমান কামাল বলেন বিগত কার্যকরী পরিষদ দল, মত, ধর্ম, নির্বিশেষে বাংলাদেশী কমিউনিটির সকলকে সম্পৃক্ত করে সৌহাদ্যপূর্ণভাবে তাদের কার্যক্রম চালিয়েছে। জনাব কামাল বলেন বাকের নবনির্বাচিত কার্যকরী পরিষদও এই ধারা অক্ষুন্ন রাখবে। সাংস্কৄতিক অনুষ্ঠানের পাশাপাশি এই বিজয় উৎসবের অন্যতম আকর্ষন ছিলো “ফ্রী হেলথ ক্লিনিক”। এই হেলথ ক্লিনিকে বিনা খরচে চিকিৎসার জন্য ভীড় জমে। উল্লেক্ষ্য যে “বাক” এর উদ্যোগে এবং ডঃ সাইদুর রহমানের সৌজন্যে প্রতি মাসে কানেটিকাটের বিভিন্ন এলাকায় নিয়মিতভাবে ফ্লু সাট এবং হেলথ ক্লিনিকের আয়োজন করা হয়। এই ক্লিনিকে বিনা খরচে চিকিৎসা প্রদান ছাড়াও বিনামূল্যে ইনসুলিন ও ঔষধ বিতরন করা হয়। “বাক” এর “ফ্রী হেলথ ক্লিনিক” কার্যক্রম কমিউনিটিতে অত্যন্ত সাড়া জাগিয়েছে, ও ভূয়সী প্রশংসা অর্জন করেছে। হেলথ ক্লিনিকের পাশাপাশি এই অনুষ্ঠানে “বাক” এর উপদেষ্টা এবং প্রাক্তন সভাপতি জনাব তামিম আহমেদের উদ্যোগে “একসেস-এ-হেলথ ইন্স্যুরেন্স” এনরোলমেন্ট সার্ভিস প্রদান করা হয়েছে। সব শেষে বাকের সাংস্কৃতিক সম্পাদক হুমায়ন চৌধুরী তাঁর ধন্যবাদ বক্তব্যে বলেন “প্রবাসে দেশের ঐতিয্য ও সংস্কৃতি তুলে ধরার জন্য, এবং নতুন প্রজন্মের সাথে বাংলা ভাষা, সাহিত্য, সংস্কৃতি ও ঐতিয্যের পরিচিতির প্রচেষ্টায় বাক প্রতি বছর বিভিন্ন সংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করে আসছে। একটি সামাজিক সংগঠন হিসেবে বাংলাদেশী আমেরিকান এসোসিয়েশন অব কানেটিকাটের প্রতি আপনাদের সকলের অকৃত্তিম সমর্থন, নিরলস সহযোগীতা, আর সক্রিয় অংশগ্রহনের জন্য আমি আপনাদের জানাই আন্তরিক ধন্যবাদ!” --কানেটিকাট থেকে রওনাক আফরোজ। ১২/২২/১৩
সর্বশেষ আপডেট ( সোমবার, ০৭ জুলাই ২০১৪ )
 

Add comment


Security code
Refresh

< পূর্বে   পরে >
Free Joomla Templates